বৃহস্পতিবার, ২১ নভেম্বর ২০১৯, ১২:৫৩ অপরাহ্ন


বিএনপির ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে একাদশ সংসদ নির্বাচনে গণফোরাম থেকে জয়লাভ করা সুলতান মোহাম্মদ মনসুর আহমেদ সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ গ্রহণ করেছেন। বৃহস্পতিবার (৭ মার্চ) বেলা ১১টার পর তাকে শপথ পাঠ করান স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। জাতীয় সংসদে স্পিকারের কার্যালয়ে এ শপথ পাঠ অনুষ্ঠিত হয়।

শপথ অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জাতীয় সংসদের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমেদ খান। অনুষ্ঠানে ডেপুটি স্পিকার মো. ফজলে রাব্বী মিয়া, চিফ হুইপ নূর ই আলম চৌধুরী, হুইপ ইকবালুর রহিমসহ সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে শপথ নিয়ে বেরিয়ে এসে সুলতান মোহাম্মদ মনসুর বলেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতা ড. কামাল হোসেনের জ্ঞাতসারেই (নলেজেই) শপথ নিয়েছি। তিনি ঐক্যফ্রন্ট থেকে নির্বাচিত বাকি সাত সদস্যকেও শপথ নেয়ার আহ্বান জানান।

দলীয় সিদ্ধান্তের বাইরে গিয়ে শপথ নেয়ায় বিষয়ে মৌলভীবাজার-২ আসনের এই সংসদ সদস্য বলেন, সবার সব কথার উত্তর আমি দেব না। আমি ঐক্যফ্রন্টের প্রতিনিধি। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রতিনিধি হিসেবে আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছি। একটি কথা বলতে পারি— জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতার (ড. কামাল) নলেজেই আমি শপথ নিয়েছি।

তিনি বলেন, দল তার সিদ্ধান্ত নেবে, আমি আমার ভূমিকা পালন করব। দল হিসেবে তারা সিদ্ধান্ত নিতেই পারে। তাদের সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় থাকুন। আর আমার ভূমিকার অপেক্ষায় থাকেন।

সুলতান মোহাম্মদ মনসুর বলেন, আমি এর আগেও সংসদ সদস্য ছিলাম। সংবিধানের ৭০ অনুচ্ছেদ জেনে-বুঝেই এ সিদ্ধান্ত নিয়েছি। আমরা আটজন জয়ী হয়েছি। বাকি ২৯২ আসনে তারা একটি মিছিলও বের করতে পারেনি। তারা জনগণকে সম্পৃক্ত করতে পারলে হয়তো আরও অনেকেই জয়ী হতে পারত।

সাবেক আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বলেন, বহু প্রতিকূলতা সত্ত্বেও মৌলভীবাজার-২ আসনের জনগণ আমাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করেছে। আমার প্রতি তাদের এই অকুণ্ঠ সমর্থনকে শ্রদ্ধা জানাতে শপথ নিয়েছি। জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের শীর্ষ নেতাকে জানিয়েই শপথ নিয়েছি।

তিনি বলেন, একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি হিসেবে সংসদে অংশ নেয়া হলো আমার প্রথম ও প্রধান কাজ। আমি আমার সংসদীয় এলাকা এবং জনগণের কথা বলতে শপথ নিয়েছি। একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট থেকে নির্বাচিত বাকি সাত জনপ্রতিনিধিকেও শপথ নেয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।

আরও পড়ুন