বুধবার, ১৭ Jul ২০১৯, ০৩:০৯ অপরাহ্ন


কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স যে দুই মৌসুম পর আবার বিপিএলের ফাইনালে উঠেছে, তাতে উল্লেখযোগ্য অবদান শামসুর রহমানের। ৩০ বছর বয়সি এই ব্যাটসম্যান দলের চাওয়ামতো পরিস্থিতির দাবি মেটাচ্ছেন দারুণভাবে। অথচ শুরুতে তাকে দলেই নিতে চাননি কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন। তাকে দলে নেওয়ার পুরো কৃতিত্ব তিনি দিলেন তামিম ইকবালকে।

শুক্রবার ফাইনালে ঢাকা ডায়নামাইটসের মুখোমুখি হবে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। প্রাথমিক পর্বে এই ঢাকার বিপক্ষেও ৪৮ রানের দারুণ এক ইনিংস আছে শামসুরের। সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত ৯ ম্যাচে তিনি করেছেন ২১০ রান।

বিপিএলের নিলামে শামসুরের প্রতি আগ্রহ ছিল না কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজির। পরে তামিমের চাওয়ায় তাকে দলে নেয় কুমিল্লা। এর প্রতিদান বেশ ভালোভাবেই দিচ্ছেন একটা সময় জাতীয় দলে খেলা শামসুর।

ফাইনালের আগের দিন তাই শামসুরকে প্রশংসায় ভাসালেন কোচ সালাউদ্দিন, ‘সে যেই সাফল্যটা পাচ্ছে, সেটা তার নিজের যোগ্যতায় সে করছে এবং সে সারা বছর অনেক সিরিয়াস ছিল। এর পুরো কৃতিত্ব আমি দেব তামিমকে। তামিমের কল্যাণেই সে এই দলে আসছে। প্রথমে আমি তাকে নিতে চাইনি। কিন্তু তামিম বলেছে “সে অনেক প্র্যাকটিস করতেছে স্যার একটা সুযোগ দেন”। এই কারণে শামসুর রহমানকে নেওয়া। তার সাফল্যের পেছনে আমি মনে করি তারই অবদান বেশি।’

২০১৩ সালে অভিষেকের পর জাতীয় দলের হয়ে ১০টি ওয়ানডে, ৬টি টেস্ট ও ৯টি টি-টোয়েন্টি খেলেছেন শামসুর। ২০১৪ সালের নভেম্বরের পর আর জাতীয় দলের জার্সিতে খেলা হয়নি তার।

আরও পড়ুন